1. nasiralam4998@gmail.com : admi2017 :
সোমবার, ২০ মে ২০২৪, ১১:২৬ পূর্বাহ্ন

নতুন পাঠ্যক্রম বাতিল ও পরীক্ষা পদ্ধতি চালুসহ ৮ দফা দাবি

  • আপডেট টাইম : রবিবার, ১২ নভেম্বর, ২০২৩
  • ৭৩ বার

নতুন পাঠ্যক্রম সম্পূর্ণ বাতিল ও পরীক্ষা পদ্ধতি চালুসহ ৮ দফা দাবি জানিয়েছে সম্মিলিত শিক্ষা আন্দোলন।

শুক্রবার (১০ নভেম্বর) ঢাকা রিপোর্টার্স ইউনিটি মিলনায়তনে এক সংবাদ সম্মেলনে সম্মিলিত শিক্ষা আন্দোলনের সমন্বয়ে শিক্ষার্থী অভিভাবক ফোরাম এসব দাবি তুলে ধরে।

সংবাদ সম্মেলনে বক্তারা বলেন, ত্রিভুজ চিহ্ন বাতিল করে পূর্বের ন্যায় নাম্বার ও গ্রেডভিত্তিক মূল্যায়ন পদ্ধতি করা হোক। আমরা মনে করি, বাংলাদেশের আর্থ-সামাজিক প্রেক্ষাপটে নতুন এই পাঠ্যক্রম এ দেশের জন্য অনুপযুক্ত। নতুন এই পাঠ্যক্রম সংস্কার করে অন্তত ৫০/৬০ নাম্বারে দুই সাময়িক লিখিত পরীক্ষা পদ্ধতি চালু, নাম্বার ও গ্রেডভিত্তিক মূল্যায়ন করা হোক।

এছাড়া, প্রতি বছর প্রতি ক্লাসে রেজিস্ট্রেশন ও সনদ দেওয়ার সিদ্ধান্ত বাতিল, স্কুল পিরিয়ডে সমস্ত প্রোজেক্ট সম্পন্নকরণ এবং সমস্ত ব্যবহারিক ব্যয় স্কুলকে বহন করার দাবি জানান তারা।

বক্তারা আরও বলেন, এই পাঠ্যক্রম অনুযায়ী নবম শ্রেণিতে গিয়ে শিক্ষার্থীদের আগ্রহ অনুযায়ী বিভাগ বা বিষয় বেছে নেওয়ার সুযোগ আর থাকছে না। পদার্থবিজ্ঞান, রসায়ন ও জীববিজ্ঞান মিলিয়ে একটি বিজ্ঞান বই এবং উচ্চতর গণিত ও গণিত মিলিয়ে একটি গণিত বই সবার পাঠের জন্য বানানো হয়েছে। ফলে বিজ্ঞানে আগ্রহী শিক্ষার্থীরা এখন আগের চেয়েও কম বিজ্ঞান ও গণিত শিখবে এবং আমাদের আশঙ্কা তারা উচ্চশিক্ষায় গিয়ে ব্যর্থ হবে।

সংবাদ সম্মেলনে ৮ দফা দাবি তুলে ধরা হয়। দাবিগুলো হলো-

১. শিক্ষানীতি বিরোধী নতুন কারিকুলাম সম্পূর্ণ বাতিল করতে হবে।

২. নাম্বারভিত্তিক ২টা সাময়িক লিখিত পরীক্ষা (৬০ নাম্বার) চালু রাখতে হবে এবং ক্লাস টেস্টগুলোকে ধারাবাহিক মূল্যায়ন (৪০ নাম্বার) হিসেবে ধরতে হবে।

৪. ত্রিভুজ, বৃত্ত, চতুৰ্ভুজ ইত্যাদি নির্দেশক বা ইন্ডিকেটর বাতিল করে নাম্বার ও গ্রেড ভিত্তিক মূল্যায়ন পদ্ধতি রাখতে হবে।

৬. শিক্ষার্থীদের দলগত ও প্রোজেক্টের কাজে ডিভাইসমুখী হতে অনুৎসাহিত করতে হবে এবং তাত্ত্বিক বিষয়ে অধ্যয়নমুখী করতে হবে।

৭. প্রতি বছর প্রতি ক্লাসে নিবন্ধন ও সনদ দেওয়ার সিদ্ধান্ত বাতিল করতে হবে, প্রাথমিক ও জুনিয়র বৃত্তি পরীক্ষা চালু রাখতে হবে এবং এসএসসি ও এইচএসসি ২টা পাবলিক পরীক্ষা বহাল রাখতে হবে।

৮. সব সময়ে সব শ্রেণিতে নতুন পাঠ্যক্রম বাস্তবায়নের আগে অবশ্যই তা মন্ত্রী পরিষদ এবং সংসদে উত্থাপন করতে হবে।

এ সময় তারা আগামী ১৪ নভেম্বর সকাল ১১টা থেকে সাড়ে ১২টা পর্যন্ত সারাদেশের সব স্কুলের সামনে অভিভাবক সমাবেশ এবং ২৪ নভেম্বর সকাল ১০টায় শহীদ মিনারে অভিভাবক সমাবেশের কর্মসূচি ঘোষণা দেন । এছাড়া তারা ডিসি বরাবর স্মারকলিপি দেন।

সংবাদ সম্মেলনে সম্মিলিত শিক্ষা আন্দোলনের সমন্বয়ক জাহাঙ্গীর কবিরের সঞ্চালনায় লেখক ও গবেষক রাখাল রাহার সভাপতিত্বে বক্তব্য দেন উইলস লিটল ফ্লাওয়ার স্কুলের শিক্ষার্থী অভিভাবক কমিটির সদস্য শেখ সাইফুর রহমানসহ অভিভাবকরা।

নিউজটি শেয়ার করুন..

Leave a Reply

Your email address will not be published. Required fields are marked *

এ জাতীয় আরো খবর..