1. nasiralam4998@gmail.com : admi2017 :
শুক্রবার, ১৯ এপ্রিল ২০২৪, ০৯:২১ অপরাহ্ন

থানচি বাজারে ভয়াবহ আগুনে অর্ধশতাধিক দোকান ও ঘর পুড়ে ছাই

  • আপডেট টাইম : শনিবার, ২৫ মার্চ, ২০২৩
  • ৭৩ বার

বান্দরবানে থানচি উপজেলার থানচি বাজারে লাগা আগুন নিয়ন্ত্রণে এসেছে। ফায়ার সার্ভিসের দুই ইউনিট প্রায় ৩ ঘণ্টা চেষ্টা চালিয়ে শনিবার (২৫ মার্চ) সকাল সাড়ে ১১টার দিকে  আগুন নিয়ন্ত্রণে আনে।

এর আগে একই দিন সকাল সাড়ে ৮টার দিকে বাজারটিতে আগুন লাগে। এতে প্রায় ৫৫টির বেশি দোকান পুড়ে গেছে বলে জানিয়েছেন স্থানীয় জনপ্রতিনিধি।

থানচি ফায়ার সার্ভিসের সাব অফিসার মো. ইসমাইল মিয়া এতথ্য জানান, ফায়ার সার্ভিস ও স্থানীয় সূত্রে জানা যায়, সকাল সাড়ে ৮ টার দিকে থানচি বাজারের দক্ষিণে পুরনো ঝুলন্ত সেতুর এলাকার মায়া গেস্ট হাউজের পাশে থাকা ময়লা-আবর্জনার স্তূপ থেকে আগুনের সূত্রপাত।

মো. জামাল নামে এক ক্ষতিগ্রস্ত ব্যবসায়ী জানান, আগুন দ্রুত ছড়িয়ে পড়ে। আগুনের কাছাকাছি পৌঁছানো যাচ্ছিলো না । আগুনে আমার কাপড়ের দোকানটি সম্পূর্ণ পুড়ে গেছে। দোকান থেকে কিছুই বের করা যায়নি।

মংম্যাসে মারমা নামে অপর ক্ষতিগ্রস্ত ব্যবসায়ী জানান, তার কম্পিউটার ও কাপড়ে দোকান ছিল। দুটি দোকান সম্পূর্ণ পুড়ে গেছে। সাংগ্রাই অনুষ্ঠানের জন্য অনেকগুলো কাপড়ের অর্ডার ছিল। এসব কাপড় পুড়ে গেছে। দুটি দোকান পুড়ে গিয়ে একদম পথের বসার মত অবস্থা।

থানচি সরকারি উচ্চবিদ্যালয়ের প্রধান শিক্ষক নূর মোহাম্মদ জানান, সকালে বাজারে যাচ্ছিলাম। সেসময় বাজারের দক্ষিণ কোণে মায়া গেস্ট হাউজের পেঁছনে আবর্জনায় আগুন জ্বলতে দেখেছি। আমার ধারণা সেখান থেকে আগুন বাজারের দোকানগুলোতে লাগতে পারে।

থানচি উপজেলা পরিষদের চেয়ারম্যান থোয়াই হ্লা মং মারমা জানান, ‘বাজারের দক্ষিণ কোণ থেকেই আগুনের সূত্রপাত হয়েছে বলে ধারণা করা হচ্ছে। আগুনের খবর পেয়ে ফায়ার সার্ভিসের সদস্যরা এসে আগুন নিয়ন্ত্রণে আনেন।

তিনি আরও জানান, আগুনে ৫৫টির বেশি দোকান পুড়ে গেছে বলে আশঙ্কা করা হচ্ছে। এ ঘটনায় প্রায় ৫-৬ কোটি টাকার ক্ষয়ক্ষতি হয়েছে বলে ব্যবসায়ীরা জানিয়েছেন।

থানচি উপজেলা নির্বাহী অফিসার (ইউএনও) মুহা. আবুল মনসুর জানান, বলিবাজারে ভয়াবহ অগ্নিকাণ্ডের ৩দিন অতিবাহিত  না হতেই থানচি বাজারে আগুন লাগলো। ঘটনা গুলো অত্যন্ত ভয়াবহ। একদিকে গ্রীষ্ম মৌসুম শুরু, অন্যদিকে পাহাড়ে ক্ষুদ্র-নৃগোষ্ঠীদের বড় অনুষ্ঠান সাংগ্রাই উৎসব সন্নিকটে। উৎসবকে ঘিরেই বাজারের বেঁচাকেনা ও ব্যবসা জমজমাট হতে শুরু করছে মাত্র। এই সময়ে উপজেলার দু’টি প্রধান বাজারে এক সপ্তাহের ভেতরেই ভয়াবহ আগুনে পুড়ে ছাই হয়ে গেলো। তিনি আরও জানান, থানচি ও বলিবাজারের আগুন লাগার দুটি ঘটনা তদন্ত করে দেখা হচ্ছে।

নিউজটি শেয়ার করুন..

Leave a Reply

Your email address will not be published. Required fields are marked *

এ জাতীয় আরো খবর..