1. nasiralam4998@gmail.com : admi2017 :
বৃহস্পতিবার, ৩০ মে ২০২৪, ০৯:৪৫ পূর্বাহ্ন

কিউইদের হারিয়ে ইতিহাস বাংলাদেশের

  • আপডেট টাইম : বুধবার, ২৭ ডিসেম্বর, ২০২৩
  • ৮৬ বার
কিউইদের হারিয়ে ইতিহাস বাংলাদেশের, ছবি সংগৃহীত

আগের ১১ বার নিউ জিল্যান্ডের মাটিতে টি-টোয়েন্টি খেলতে নেমে একবারও হানিমুখে ফিরতে পারেনি বাংলাদেশ দল। তবে এবার সে আপেক্ষ পূরণের আশায় ছিল টিম টাইগার্স। বুধবার সিরিজের প্রথম ম্যাচে নিউ জিল্যান্ডকে ৫ উইকেটে হারিয়ে সে অপেক্ষার অবসান হয়েছে বাংলাদেশের।

নেপিয়ারে সিরিজের প্রথম টি-টোয়েন্টিতে টস জিতে আগে বল হাতে নিয়ে নিউ জিল্যান্ডের ৯ উইকেট তুলে নিয়ে ১৩৪ রানে আটকে দেয় বাংলাদেশ। জবাব দিতে নেমে ১৮.৪ ওভারে ৫ উইকেট হারিয়ে জয় নিশ্চিত করে বাংলাদেশ। এ জয়ে ৩ ম্যাচ টি-টোয়েন্টি সিরিজে ১-০ ব্যবধানে এগিয়ে গেল নাজমুল হোসেন শান্তর বাংলাদেশ। লিটন দাস ৩৬ বলে ২ চার ও  ১ ছয়ে ৪১ রানে অপরাজিত থাকেন। অন্যদিকে মেহেদী হাসান ১৬ বলে ১৯ রানে অপরাজিত ছিলেন। এরআগে সৌম্য সরকার ২২ ও নাজমুল হোসেন শান্ত করেন ১৯ রান।

সিয়ার্সের বলে বোল্ড সৌম্য 

আগের বলেই চার হাঁকিয়েছিলেন সৌম্য সরকার। কিন্তু বেন সিয়ার্স এর পরের বল আড়াআড়ি খেলতে গিয়ে বোল্ড হলেন সৌম্য সরকার। ফেরার আগে তিনি করেন ১৫ বলে ২২ রান।

উইকেট বিলিয়ে দিলেন শান্ত 

শুরুটা দারুণ করেছিলেন নাজমুল হোসেন শান্ত। কিউইদের জন্য বিপজ্জনক জয়ে উঠার আভাসও দিয়েছিলেন তিনি। তবে শেষ পর্যন্ত তাকে থামালেন জিমি নিশাম। তার লাফিয়ে ওঠা বলে অহেতুক বড় শর্ট খেলতে গিয়ে ক্যাচ দিয়ে ফিরলেন। ফেরার আগে ১৪ বলে ১৯ রান করেন তিনি।

দ্রুতই ফিরলেন রনি 

শুরুটা করেছিলেন ছয়ে। তবে দ্রুতই ফিরলেন রনি তালুকদার। ৭ বলে ১০ রান করে মিলনের বলে সাউদির হাতে ক্যাচ দিয়ে থামলেন রনি তালুকদার। ১৩ রানে প্রথম উইকেট হারাল বাংলাদেশ।

জিততে বাংলাদেশের চায় ১৩৫ রান 

নিউ জিল্যান্ডের বিপক্ষে তাদের মাটিতে ৯টি টি-টোয়েন্টি খেলেও কোনো জয় পায়নি বাংলাদেশ। সব মিলিয়ে সেখানে ১১টি ম্যাচ খেলে জয় নেই তাদের। তবে আজ সেই ইতিহাস বদলাতে চায় টিম টাইগার্স। এজন্য বল হাতে শুরুটা দারুণ হয়েছে তাদের। বুধবার নেপিয়ারে অনুষ্ঠেয় সিরিজের প্রথম টি-টোয়েন্টি জিততে টাইগারদের চায় ১৩৫ রান।

বুধবার টস জিতে নেপিয়ারে আগে বল হাতে মাঠে বাংলাদেশ। শুরু থেকেই শরিফুল ইসলামের তোপে পড়ে নিউ জিল্যান্ড। পরে শেখ মেহেদী হাসান, রিশাদ হোসেন ও মোস্তাফিজুর রহমান দুর্দান্ত বোলিং করেন। যে কারণে বেশিদূর এগোতে পারেনি কিউইরা। নির্ধারিত ২০ ওভারে তারা ৯ উইকেট হারিয়ে তুলেছে ১৩৪ রান। দলটির হয়ে জিমি নিশাম করেন সর্বোচ্চ ৪৮ রান। বাংলাদেশের হয়ে ২৬ রানে ৩ উইকেট নেন শরিফুল। এদিকে ৪ ওভারে ১৫ রানের বিনিময়ে মোস্তাফিজ নেন ২টি উইকেট।

সৌম্যর দারুণ ক্যাচে স্যান্টনারকে ফেরালেন শরিফুল 

নিউ জিল্যান্ডের বিপদের সময় চওড়া হাতে ব্যাট করার আভাস দিয়েছিলেন মিচেল স্যান্টনার। তবে তাকে সে সুযোগ বেশিক্ষণ দিলেন না শরিফুল ইসলাম। ইনিংসের ১৫তম ওভারের তৃতীয় বলে তিনি সৌম্যর দারুণ ক্যাচে কিউই ভারপ্রাপ্ত অধিনায়ককে ফিরিয়ে দিলেন। ফেরার আগে স্যান্টনার করেন ২২ বলে ২ চারে ২৩ রান।

রিশাদ বলে তামিমের হাতে ক্যাচ দিয়ে ফিরলেন চাপম্যান

বল হাতে নিয়েই উইকেটের দেখা পেলেন রিশাদ হোসেন। এ স্পিনার ফিরিয়েছেন মার্ক চাপম্যানকে। এ বোলারের বল জায়গা বানিয়ে খেলতে গিয়ে এক্সট্রা কাভারে ধরা পড়েছেন তিনি। দ্বিতীয় বলেই উইকেটের দেখা পেয়েছেন রিশাদ। এরফলে আরও চাপে পড়েছে নিউ জিল্যান্ড।

মেহেদীর বলে বোল্ড মিচেল

আক্রমণে ফিরেই ডেরিল মিচেলকে বোল্ড করে সাজঘরে পাঠালেন শেখ মেহেদীকে। বলের লাইন ধরেই খেলতে চেয়েছিলেন মিচেল। তবে যতটা চেয়েছিলেন, ততটা টার্ন করেনি। তুলে মারতে গিয়ে মিচেল মিস করে গেছেন সেটি। ২০ রানে চতুর্থ উইকেট হারিয়েছে নিউ জিল্যান্ড।

বল হাতে বাংলাদেশের দারুণ শুরু 

বাংলাদেশের স্বপ্নের শুরু। শরীফুল ইসলামের অফ স্টাম্পের বাইরের লাইনের লেংথ বলে ব্যাট চালিয়ে এজড হয়েছেন ফিন অ্যালেন, স্লিপে সহজ ক্যাচ নিয়েছেন সৌম্য সরকার। ৮ বলের মধ্যে ২ ওপেনারকে হারিয়ে ফেলেছে নিউ জিল্যান্ড!

নতুন শুরুর আশায় টস জিতে ফিল্ডিংয়ে বাংলাদেশ 

নিউ জিল্যান্ডের মাটিতে টি-টোয়েন্টিতে এখন পর্যন্ত ১১ ম্যাচে মুখোমুখি হয়েছে বাংলাদেশ দল। তবে সফরকারীদের জয়ের খাতায় শুন্যেই রয়ে গেছে। তবে এবার অতীত ইতিহাস মুছতে চায় নাজমুল হোসেন শান্তর দল। সে লক্ষ্য পুরণে আজ  তিন ম্যাচ সিরিজের প্রথম টি-টোয়েন্টিতে নেপিয়ারে নিউ জিল্যান্ডের মুখোমুখি হয়েছে লাল-সবুজ প্রতিনিধিরা। তার আগে টস জিতে ফিল্ডিংয়ের সিদ্ধান্ত নিয়েছে বাংলাদেশ।

চলতি বছর টি-টোয়েন্টি ফরম্যাটে দারুণ ছন্দে রয়েছে বাংলাদেশ। এ বছর টাইগাররা তিনটি টি-টোয়েন্টি সিরিজ খেলেছে আর সবকটিতেই জিতেছে তারা। এর মধ্যে বিশ্বচ্যাম্পিয়ন ইংল্যান্ড ও আফগানিস্তানকে করেছে হোয়াইট ওয়াশও। তাই সেই সাফল্য এই ম্যাচেও টানতে চাইবেন লাল-সবুজের প্রতিনিধিরা।

এদিকে নিউজিল্যান্ডের বিপক্ষে এই সিরিজ দিয়ে টি-টোয়েন্টি বিশ্বকাপের প্রস্তুতিও শুরু করে দিতে চায় টাইগাররা। আগামী জুনে বিশ্বকাপ হবে যৌথভাবে ওয়েস্ট ইন্ডিজ ও যুক্তরাষ্ট্রে। বিশ্বকাপের জন্য দলকে এখন থেকেই সুনির্দিষ্টভাবে তৈরি করতে চান টাইগার কোচ চন্ডিকা হাথুরুসিংহে।

নিউ জিল্যান্ডের মাটিতে হারের বৃত্ত ভেঙ্গে জয়ের স্বাদ নিতে চান টাইগার অধিনায়ক নাজমুল হোসেন শান্তও। নেপিয়ারে তিনি জয় পাওয়ার খুব ভালো সুযোগও দেখছেন। মঙ্গলবার সিরিজের ট্রফি উন্মোচনে গিয়ে গণমাধ্যমের মুখোমুখি হয়ে তিনি বলেন, ‘আমার মনে হয় খুব ভালো একটা সুযোগ, সবাই অনেক রোমাঞ্চিত এই সিরিজটা খেলার জন্য। দল হিসেবে খুব ভালো প্রস্তুতি হয়েছে। টি-টোয়েন্টির কিছু খেলোয়াড় আগে এসেছে, এসে প্রস্তুতি নিয়েছে। আশা করছি যে সবাই কালকে একসাথে হয়ে খুব ভালো একটা ম্যাচই খেলবে।’

বাংলাদেশ একাদশ: 

নাজমুল হোসেন (অধিনায়ক), সৌম্য সরকার, লিটন দাস, রনি তালুকদার, তাওহিদ হৃদয়, মোস্তাফিজুর রহমান, আফিফ হোসেন, মেহেদী হাসান, তানজিম হাসান, শরীফুল ইসলাম, রিশাদ হোসেন।

নিউ জিল্যান্ড একাদশ: 

মিচেল স্যান্টনার (অধিনায়ক), ফিন অ্যালেন, মার্ক চাপম্যান, অ্যাডাম মিলনে, ড্যারিল মিচেল, জিমি নিশাম, গ্লেন ফিলিপস, বেন সিয়ার্স, টিম সেইফার্ট, ইশ সোধি ও টিম সাউদি।

নিউজটি শেয়ার করুন..

Leave a Reply

Your email address will not be published. Required fields are marked *

এ জাতীয় আরো খবর..